অ্যাপ ডিজাইন জন্য ইউ এক্স ডিজাইন জানা কেন প্রয়োজন?

“ইউজার এক্সপেরিয়েন্স ( UX )” এবং “ইউজার ইন্টারফেস ( UI )” কী?

UX = User Experience.

সহজ বাংলায় ব্যাবহারকারির অভিজ্ঞতা। আপনি, আমি আমরা সবাই ইউজার। এই ইউএক্স সব ধরনের পন্যের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। কিন্তু আমরা যখন একটি ওয়েবসাইটের কথা বলছি, তখন ওয়েব সাইট’টির ওনার সেটা তৈরি করছে অন্য ইউজারদের জন্য। তার টার্গেট মার্কেট অনুযায়ী সে যখন ওয়েব এর পুরো আর্কিটেচারটা ডিজাইন করে সেখানে তাকে অনেক কিছু মাথায় রেখে ডিজাইনটা দাঁর করাতে হয়। এর অনেকগুলো ধাপ আছে।

 

আমরা অনেকেই মনে করি, শুধু (UI) ইউ আই বা (User Interface) ইউজার ইন্টারফেস ডিজাইন করাটাই ইউ এক্স। এটা ভুল, ইউ আই হচ্ছে ইউ এক্স এর অনেকগুলো ধাপ এর মধ্যে অন্যতম একটি। উদাহরন দিয়ে আরেকটু পরিষ্কার করে আমরা যদি বলি তাহলে হয়ত ব্যাপারটি আরেকটু সহজ হবে।

যেমন ফেসবুক এত জনপ্রিয় কেন? এর এত ইউজার কেন? আর সব নেটওয়ার্কিং সাইটের মধ্যে ফেসবুক সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট হিসেবে কেন এত জনপ্রিয়? উত্তরটা সহজ। এর ইউ এক্স ভালো বলে আমরা সবাই এখানে অনেক বেশী এঙ্গেজড। একজন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের ইউজার যা যা চায় তার মোটামুটি সব কিছুই আমরা এখানে পাই।

সুতরাং, ইউ এক্স ভালো না মন্দ সেটার ভাগ্য নির্ধারণ করে কিন্তু সাইটের ইউজাররাই। যখন, সাইট এর মধ্যে ইউজার এসে সাচ্ছন্দ্য বোধ করে না, কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে সাইট থেকে বেরিয়ে যায়, যখন ইউজার সাইটে এসে তার কাঙ্ক্ষিত বিষয়টি খুঁজে না পেয়ে ফিরে যায় এবং আর ব্যাক করে না তখন বুঝতে হবে সাইট এর ইউ এক্স এ কোন সমস্যা আছে। তাই, ইউ এক্স এর দিকগুলো মাথায় রেখে একটি সাইট যখন ডিজাইন করা হয় তখন ব্যাবসার সফলতা ও সম্ভাবনা অনেকাংশে বেড়ে যায়।

Don’t mess UI with UX –

অনেকেই  UX/UI এভাবে লিখে। এটার মানে হচ্ছে ইউএক্স বা ইউআই।  ইউআই হচ্ছে ইউএক্স এর অন্তর্ভুক্ত একটি পার্ট।  সুতরাং ইউএক্স কে একসাথে করলে চলবে না। বরং এভাবে লিখা জেতে পারে – UX and UI.

 

Ux in Bangladesh

 

কিভাবে একজন মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ডিজাইনার হতে নিজেকে ইউ এক্স ডিজাইনার হিসেবে আপগ্রেড করবেন?

 

“ইউ এক্স” কি এবং এর প্রয়োজনীয়তা ও প্রয়োগবিধি ইত্যাদি নিয়ে ইতিমধ্যেই অনেককথা বলা হয়ে গেছে। কিন্তু, অনেকের মধ্যে এখনও পর্যন্ত একটি বিষয় নিয়ে সংশয় কাজকরছে। সেটা হচ্ছে যদি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন  ডিজাইনার এবং ইউ এক্স ডিজাইনার দুজন’ই মোবাইল অ্যাপ ডিজাইন করে থাকে তাহলে তাদের মধ্যে পার্থক্যটা কোথায়? সংক্ষেপে চলুন জেনে নেয়া যাক, মোবাইল অ্যাপ  ডিজাইনার এবং ইউ এক্স ডিজাইনার এর মধ্যে আসলে তফাৎটা কোথায়?
আপাতদৃষ্টিতে মোবাইল অ্যাপ ডিজাইনার এবং ইউ এক্স ডিজাইনার দুজন’ই ওয়েব মোবাইল অ্যাপ ডেভেলপ এর কাজ করলেও, এই দু’পেশার মধ্যে কাঠামোগত একটি বৈশিষ্ট আছে এবং কিছু পার্থক্য বিরাজমান।

 

মোবাইল অ্যাপ ডিজাইনার যেভাবে কাজগুল করে থাকে –
কাজের রিকোয়ারমেণ্ট নিয়ে ডিজাইন তৈরি করে কোড করা শুরু করে। এক্ষেত্রে তার কাজটিতে এক্সপ্লোর করার জায়গাটা সীমিত থাকায় সে অল্প কিছু বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখেযেমন ক্রিয়েটিভিটি, ভিজুয়াল ডিজাইন এবং ডিজাইন এর ইন্সপিরিশন এর।

কজন মোবাইল অ্যাপ যে বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করে –
গ্রাফিকাল ডিজাইন্ টা আগে তৈরি করে, কালার স্কিম নিয়ে কাজ করে, ইন্টারফেস ডিজাইন করে,ফটোশপ/ইলাস্ট্রেটর এ কাজ করে, নেভিগেশন ডিজাইন করে, এবং ফাইল প্রিপারেশন করে এবং এক্সএমএল, জাভা, সার্ভার সাইড  নিয়ে কাজ করে।

 

ইউ এক্স ডিজাইনার যেভাবে কাজগুল করে থাকে –
কাজের রিকোয়ারমেণ্ট বুঝে নিয়ে আগে পুরো কাজটা সম্পর্কে চিন্তা করে। যাদের জন্য অ্যাপটি তৈরি করছে মানে ইউজারদের গ্রুপ, টেস্ট, বিহেভিওর, সাইকলজি ইত্যাদি সব বিষয়গুলো নিয়ে রিসার্চ করে।

 

একজন “ইউ এক্স ডিজাইনার” যে যেভাবে কাজগুল সম্পন্ন করে –
প্রথমে ওয়ারফ্রেমস/স্কেচ করে, প্রোটোটাইপ তৈরি করে, পারসনা ডেভেলপ করে, ইউজার এর সামগ্রিকঅবস্থা নিয়ে গবেষণা করে, নেভিগেশন এলিমেন্টস নিয়ে কাজ করে, অ্যাপের জন্য ম্যাপ তৈরি করে এবং অ্যাপ অডিট করে। এক্সএমএল, জাভা, সার্ভার সাইড( যদি থাকে ) সেটা  নিয়ে কাজকরার পাশাপাশি কন্টেন্ট স্ট্রেটেজি নিয়ে কাজ করে।

 

সার সংক্ষেপে বলা যায়, মোবাইল অ্যাপ ডিজাইনার এর এডভান্সড লেভেল’ই হচ্ছে ইউ এক্সডিজাইন। স্পেশালাইজেশন এর এই যুগে, কাজের ক্ষেত্র বিশেষে এখন প্রতিটি কাজ আলাদাকরে এক্সপার্টদের এসাইন করা হয়। ইনফরমেশন টেকনোলজির এই বিশাল সমুদ্রে ওয়েব সাইটগুলোর মত মোবাইল অ্যাপও এখন আর শখের বা নাইস টু হ্যাভ এর মতো কোন বিষয় নয়। এখন মানুষ এতটুকু বুঝেছে যে,যেহেতু ইউজারকে কেন্দ্র করে তৈরি করা হয় সাইট গুলো সেজন্য, সাইট এর প্রতিটিপিক্সেল, প্রতিটি কর্নার, কন্টেন্ট অতিশয় গুরুত্তপুর্ন।
সময়ের প্রয়োজনে এবং টেকনোলজির নিত্ত নতুন আপগ্রেশন এর কারনে নিজেকেও আপডেট করারকোন বিকপ্ল নেই। এটা মোবাইল অ্যাপ ডিজাইনারদের জন্য খুশির খবর যে, তারা তাদের স্কিল নিয়ে অলরেডি কয়েক ধাপ এগিয়ে আছে। তাই তাদের উচিৎ অনতিবিলম্বে ইউ এক্স ডিজাইনার হিসেবে দ্রুতএডিশনাল স্কিলগুলো রপ্ত করে ফেলা।

 

কিভাবে নিজেকে আপগ্রেড করবেন ইউ এক্স ডিজাইনার হিসেবে?

অনলাইনে প্রচুর রিসোর্স আছে। প্রতিদিন জানুন, পড়ুন ইউ এক্স সম্পর্কে। পাশাপাশি থিউরক্যাল জ্ঞান আহরন করা ছাড়াও যতক্ষণ না হাতে কলমে প্র্যাকটিস করে সম্পুর্ন নিজেএকটি ইউ এক্স এর আদ্যপান্ত দিক বিশ্লেষণ করে ধাপ ধাপে একটি সাইট তৈরি করতে পারছেন, ততক্ষন কিন্তু আপনার জ্ঞান কোন কাজেই আসছে না। সেজন্য প্রফেশনাল ট্রেইনিং এর সাহায্য নিতে পারেন। বাংলাদেশে একমাত্র “ইউজারহাব” ইউ এক্স এর উপর এই ট্রেইনিংগুলো প্রভাইড করছে। তাই, হাতে কলমে উদাহরন দেখে পরিপুর্ন দক্ষতা অর্জন করতে চাইলে ইউজারহাবে করে ফেলতে পারেন একটি শর্ট কিংবা লং কোর্স।

মূল লেখকঃ

নিলীম আহসান
( সিইও, কো ফাউন্ডার  | ইউজারহাব )

 

মোবাইল অ্যাপ ডিজাইনারদের জন্য উপযোগী করে সম্পাদনা, মোশাররফ রুবেল

Mosharrof Rubel

আমাকে ফেসবুকে পাবেন এখানেঃ মোশাররফ রুবেল

You may also like...

Leave a Reply