অ্যান্ড্রয়েড ভার্শন ইতিহাস ও এপিআই ( API )

সালাম সবাইকে।
আশা করতেই পারি ভালো আছেন। না থাকলে থাকার চেষ্টা করবেন।

আজকে আমরা ছোট্ট একটা ব্যপার দেখবো অ্যান্ড্রয়েডের। যখন নতুন কোন অ্যাপ বানাতে যাবেন, তখন API লেভেল সম্পর্কে পরিষ্কার ধারনা থাকতে হয়। তাই অ্যান্ড্রয়েডের ভার্শন হিস্টোরি ও API নাম্বারগুলা জানা জরুরী।
API : API  হচ্ছে Application Programming Interface যেটা কিছু নিয়ম কানুন রুটিন কিংবা টুলস নিয়ে তৈরা। সেটা ব্যবহার করে অ্যাপ্লিকেশন সফটোয়ার বানানো যাবে। ধরেন আমরা একটা সফটওয়ার বানালাম যেটাতে আপনি কই আছেন এবং কই যাবেন সেটা ইনপুট দিলে গুগল ম্যাপে দেখাবে। গুগল ম্যাপের API বানিয়ে রেখেছে অলরেডি। আপনি API টা কল করুন এবং সেখানে কই আছেন কই যাবেন সেই দুইটা প্যারামিটার ধরিয়ে দিন, ব্যাস! ম্যাপ চলে আসবে পথ মার্ক করে।

 

evolution-of-android

 

চলুন, অ্যান্ড্রয়েড ভার্শন, ভার্শন কোড এবং সেই ভার্শনে যে ক’টা API ছিলো তা জেনে নেইঃ

B: Android Base ( অ্যান্ড্রয়েড বেইজ )
ভার্শনঃ ১.০ ও ১.১
এপিআই (API): ১, ২

C: Cup Cake ( কাপ কেক )
ভার্শনঃ  ১.৫
এপিআই (API):  ৩

D:  Donut ( ধনুট )
ভার্শনঃ  ১.৬
এপিআই (API): ৪

E: Eclair ( ইক্লেইয়ার )
ভার্শনঃ  ২.০ , ২.১
এপিআই (API): ৫,৬,৭

F: Froyo (  ফ্রোয়ো )  
ভার্শনঃ  ২.২
এপিআই (API): ৮

G: Gingerbread ( জিঞ্জারব্রেড )
ভার্শনঃ  ২.৩
এপিআই (API): ৯, ১০

H: Honeycomb ( হানিকম্ব )
ভার্শনঃ  ৩.০ , ৩.১ , ৩.২
এপিআই (API): ১১, ১২, ১৩

I: Icecream Sandwitch ( আইসক্রীম স্যান্ডুইচ )
ভার্শনঃ ৪.০
এপিআই (API): ১৪, ১৫

J: Jelly Bean ( জেলি বিন )
ভার্শনঃ  ৪.১ , ৪.২ , ৪.৩
এপিআই (API): ১৬, ১৭, ১৮

K: Kitkat ( কিটক্যাট )
ভার্শনঃ  ৪.৪
এপিআই (API): ১৯, ২০

L: Lollipop ( ললিপপ )
ভার্শনঃ  ৫.০ , ৫.১
এপিআই (API): ২১, ২২

আজ এই পর্যন্তই। এগুলা কাজে লাগবে আশা করি।
ভালো থাকবেন। সুখে থাকবেন।

আরো পড়ুনঃ ক্যারিয়ার হিসেবে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট

Mosharrof Rubel

আমাকে ফেসবুকে পাবেন এখানেঃ মোশাররফ রুবেল

You may also like...

Leave a Reply